উন্নত দেশের মর্যাদা অর্জনে সঠিক পথেই বাংলাদেশ: পরিকল্পনা মন্ত্রী

Views
Charu Barta24 । । চারু বার্তা ২৪

নিউজ ডেস্ক:
২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের মর্যাদা অর্জনে বাংলাদেশ সঠিক পথেই রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেন, উন্নত দেশের কাতারে যেতে আমাদের দুইবছর, পাঁচবছর এমনকি শতবর্ষী পরিকল্পনাও রয়েছে। এসব পরিকল্পনার সফল বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌছাতে পারবো আমরা।

বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে শেরেবাংলানগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে রুপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়ন বিষয়ক এক সভায় একথা বলেন তিনি।

সভায় পরিকল্পনা কমিশনের জ্যেষ্ঠ সচিব ড. শামসুল আলম জানান, রুপকল্প ২০৪১ সাল বাস্তবায়িত হলে মাথাপিছু আয় সাড়ে ১২ হাজার ডলার ছাড়িয়ে যাবে। এইসময়ে জিডিপির প্রবৃদ্ধি দাঁড়াবে নয় দশমিক নয় শতাংশে। এছাড়া ২০৩১ সালের মধ্যে দেশে চরম দারিদ্র্যের অবসান এবং আর ২০৪১ সালের মধ্যম দারিদ্রের হার ৩ শতাংশে নামিয়ে আনা হবে। জনসংখ্যার বৃদ্ধির হার ২০৩১ সালের মধ্যে ১ শতাংশে নিয়ে আসা এবং ২০৪১ সাল পর্যন্ত এই হারই ধরে রাখার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে বলেও জানান শামসুল আলম।

এছাড়াও প্রেক্ষিত পরিকল্পনায় (২০২১-২০৪১) মানবসম্পদ উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী, দেশের মানুষের সম্ভাব্য আয়ু ২০৩১ সালের মধ্যে ৭৫ বছর এবং ২০৪১ সালে ৮৩ বছরে নিয়ে যাওয়া। মাতৃমৃত্যুর হার ২০৩১ সালে প্রতি লাখে ৭০ জন এবং ২০৪১ সালে তা কমিয়ে ৩৬ জনে নিয়ে আসা। শিশুমৃত্যুর হার ২০৩১ সালের মধ্যে প্রতি হাজারে (জীবিত জন্ম) ১৫ জনে নিয়ে আসা ও ২০৪১ সালে তা চারজনে নিয়ে আসা।

শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের বিষয়ে বলা হয়েছে, প্রাপ্তবয়স্কদের সাক্ষরতার হার ২০৩১ সালের মধ্যে শতভাগ নিশ্চিত করা এবং তা ২০৪১ সাল পর্যন্ত ধরে রাখা। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির হার ২০৩১ সালের মধ্যে শতভাগ নিশ্চিত করা এবং তা ২০৪১ সাল পর্যন্ত ধরে রাখা। প্রাথমিক বিদ্যালয় ছাড়ার হার ২০৩১ সালের মধ্যে শূন্যে নিয়ে আসা এবং ২০৪১ পর্যন্ত তা ধরে রাখা।

উচ্চশিক্ষার হার ২০৩১ সালে ৫০ শতাংশ নিশ্চিত করা এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ৮০ শতাংশ নিশ্চিত করা। উচ্চশিক্ষায় নারী শিক্ষার্থীদের শতকরা ভাগ ২০৩১ সালের মধ্যে ৫০ শতাংশ নিশ্চিত করা এবং ২০৪১ সাল পর্যন্ত তা ধরে রাখা। টেকনিক্যাল ও ভোকেশনাল শিক্ষায় ভর্তির হার ২০৩১ সালের মধ্যে ৩০ শতাংশ করা এবং ২০৪১ সালে তা ৪১ শতাংশ করা। শিক্ষায় জনসাধারণের ব্যয় ২০৩১ সালে মোট জিডিপির ৩ দশমিক ৫ শতাংশ করা এবং ২০৪১ সালে ৪ শতাংশ করা।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস’সহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Charu Barta24 । । চারু বার্তা ২৪

মন্তব্য করুন