নকলায় গৌড়দ্বার ইউপি চেয়ারম্যান পদে যুবলীগ নেতা মুস্তাফিজুরের প্রার্থীতা ঘোষণা

Views
Charu Barta24 । । চারু বার্তা ২৪

নাহিদুল ইসলাম রিজন:
শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী গৌড়দ্বার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে লড়াই করতে ইউনিয়ন যুবলীগ ও সর্বসাধারণের সমর্থন নিয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রার্থীতা ঘোষনা করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ৪নং গৌড়দ্বার ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ।

আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার গৌড়দ্বার ইউনিয়নের প্রার্থী বাছাই নিয়ে জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে এ ইউপির চেয়ারম্যান পদে লড়াই করতে মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান প্রার্থীতা ঘোষনা করায় জনমনে যেন স্বস্থি ফিরে এসেছে। ১৬ ফেব্রুয়ারি রুনীগাও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় ইউনিয়ন যুবলীগ ও স্থানীয় সাধারণ জনগন তাকে ওই সমর্থন দেন।

এর আগে ইউপি নির্বাচনী তৎপরতার প্রথমভাগ থেকেই ডিজিটাল প্রচারণা চালানোর পাশাপাশি উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও যুবলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের দিকে তাকিয়ে ছিলেন সাধারণ ভোটাররা। কিন্তু আজ পর্যন্ত দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ে কোন প্রকার ইঙ্গিত না পাওয়ায় ইউনিয়ন যুবলীগ ও সাধারন ভোটাররা সমাজ সেবক,এবং ব্যাবসায়ী মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানকে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গৌড়দ্বার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে সমর্থন দেন।

আলহাজ্ব জালাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে ও মোঃ মোশাররফ হোসেন ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামিলীগের সাধারণ সম্পাদক এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী সরকার বক্তব্য রাখেন। এসময় ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি হযরত আলী, ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন, রফিক হোসেন সাংগঠনিক সম্পাদক,বীর মুক্তিযুদ্ধা রুস্তম আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমানসহ বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ ৪নং গৌড়দ্বার ইউনিয়ন শাখার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ওয়ার্ড যুবলীগের নেতাকর্মী, স্থানীয় কয়েকশ’ সাধারন ভোটার ও বিভিন্ন গনমাধ্যমের স্থানীয় সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন।

মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, গৌড়দ্বার ইউনিয়নবাসীর চাহিদা অনুযায়ী আমি ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে আগামী ইউপি নির্বাচনে অংশ গ্রহনের জন্য প্রার্থীতা ঘোষনা করেছি। আমি আশা করি আগামী ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন দাতাগন আমার ইউনিয়নবাসীর চাওয়াকে মূল্যায়ন করবেন। তবে কোন কারনে যদি দলীয় মনোনয়ন (নৌকা প্রতীক) আমাকে দেওয়া না হয়, তাহলে আমি দলের সুনাম রক্ষায় দলের মনোনিত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবো। তাঁর সাথে ঐকমত্য পোষণ করেন উপস্থিত নেতৃবৃন্দ ও নৌকা প্রেমী সাধারণ ভোটররা। নৌকা প্রেমী সাধারণ ভোটাররা বলেন, আমরা কোন ব্যক্তি বুঝি না, আমরা বুঝি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর তনয়া জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকাকে। আমাদের ইউনিয়নে যে প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবেন, আমরা তাঁর পক্ষেই শতভাগ কাজ করে যাব। কোন বিদ্রোহী প্রার্থীকে আমরা সমর্থন করবো না, করতে পারিনা; এমনটাই সাফ সাফ নিজ নিজ অবস্থান।

Charu Barta24 । । চারু বার্তা ২৪

মন্তব্য করুন